চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানার সহযোগীতায় উদ্ধার করা হলো এক লাখ টাকা।

চট্টগ্রাম:কিন্তু ভাই-বোনের হাসির মূল্যটা তো লাখ টাকার চেয়েও বেশি।সেটাও ফিরিয়ে দিয়েছে টিম কোতোয়ালী থানার সাহসী পুলিশ সদস্যরা। চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানার অফিসার অনচার্জ মোঃমহসিন (পি.পি.এম) মহোদয় ভাই ও বোনকে তাদের টাকা ফিরিয়ে দিতে পেরে তিনি অনেক আনন্দিত। তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন কোতোয়ালীর পুরো টিমকে যারা এই কাজটি করছেন ও সহযোগীতা মৃলক ভৃমিকা রেখেছেন।আনোয়ারা থেকে ফিরছিলেন মেহাতাব উদ্দিন। যাবেন বোনের বাসায়। তাই সিএনজি অটোরিকশায় চড়ে কোতোয়ালীতে আসেন। সেখানে মিষ্টির দোকান থেকে মিষ্টি কিনে হঠাৎ মনে পড়ে ব্যাগ সিএনজিতেই থেকে গেছে। আর ব্যাগে থেকে গেছে তার দীর্ঘদিনের ঘামঝারনো সঞ্চয় এক লাখ টাকা। এর আগে তার একবার মোবাইল ছিনতাই হয়েছিল। সেবার পুলিশের শরনাপন্ন হয়ে তিনি তার মোবাইল ফেরত পেয়েছিলেন। তাই তিনি আস্থা রাখেন পুলিশের উপরই। থানায় অভিযোগের পরই আমার অফিসাররা টাকা উদ্ধারে নেমে পড়েন। বিভিন্ন সূত্রে সিএনজি চালকদের সাথে যোগাযোগের পাশাপাশি চেক করেন বিভিন্ন স্পটের সিসিটিভি ফুটেজ।পরে কর্ণফুলী ব্রিজের টোল বক্সের সিসিটিভি ফুটেজ চেক করে শনাক্ত করা হয় সিএনজিটি। এরপর ট্রাফিক বিভাগের সহযোগিতায় আটক করা হয় চালককে। উদ্ধার করা হয় মেহাতাবের সেই ব্যাগ এবং সেখানে রক্ষিত টাকা। আগেই বলেছিলাম আমাদের উপর আস্থা রাখলে আমরা সেই আস্থার প্রতিদানে শতভাগ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বিশেষ ধন্যবাদ অবশ্যই আমাদের ট্রাফিক বিভাগকে। তবে একথা স্বীকার করতেই হবে টাকা উদ্ধারের ৭৫ ভাগ কৃতিত্বই সিসিটিভি ফুটেজের। তাই নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থেই নিজেদের সিসিটিভির আওতায় রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *