সাংবাদিকদের প্রশ্ন এড়িয়ে যেতে ফ্রিজে ডুকে গেলেন বরিস জনসন

নিউজ ডেস্ক:আজই নির্বাচন বৃটেনে। কয়েকদিন ধরেই সাংবাদিকদের এড়াতে রীতিমতো কসরত করে চলছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তবে গতকালের ঘটনা যেন সবকিছুকে ছাড়িয়ে গেছে। সরাসরি সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানে তার সাক্ষাৎকারের জন্য পিছু নেওয়া সাংবাদিককে এড়াতে রীতিমতো ফ্রিজের ভেতর ঢুকে পড়েন তিনি। আর এর পুরোটাই টিভিতে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়েছে। এই খবর দিয়েছে দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট।প্রতিবেদনে বলা হয়, সাধারণ নির্বাচনের একদিন আগে ১১ ডিসেম্বর (বুধবার) শেষ মুহূর্তের নির্বাচনী প্রচারণার উদ্দেশ্যে উত্তর ইংল্যান্ডের ইয়র্কশায়ার যান জনসন।সেখানে ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ নামে একটি টিভি অনুষ্ঠানের পক্ষ থেকে প্রযোজক জোনাথন সোয়াইন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে বলেন, ‘শুভ সকাল প্রধানমন্ত্রী, আপনি কি ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ অনুষ্ঠানে আসতে চান?’ অপ্রস্তুত জনসন ও তার সহকর্মী এসময় প্রকাশ অযোগ্য বিরক্তি সূচক শব্দ ব্যবহার করেন। এমন প্রতিক্রিয়ায় অবাক হন জনাথন ও তার সহকর্মী।এসময় জনাথন প্রধানমন্ত্রীকে জানান যে, অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচারিত হচ্ছে। জবাবে জনসন বলেন, ‘আমি এক সেকেন্ডের মধ্যে আসছি।’
এই বলে তিনি সহযোগীকে নিয়ে হাঁটতে শুরু করেন। হাঁটতে হাঁটতে জনসন দুধের বোতল ভর্তি একটি ফ্রিজের ভেতর গিয়ে ঢুকেন। তখন পেছন থেকে এক ব্যক্তি চিৎকার দিয়ে বলে, ‘এটা একটা বাঙ্কার।’ পরে জানা যায় সেটি আসলেই একটি ফ্রিজ বাঙ্কার নয়।অনুষ্ঠানটি যেহেতু লাইভ হচ্ছিল তাই ব্যাপারটি মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে। এ ব্যাপারে কনজারভেটিভরা দাবি করেন, দুধের বোতল আনতে ফ্রিজের ভেতর গিয়েছিলেন জনসন, লুকানোর জন্য নয়। জনসনের আগে থেকেই একটি ইন্টারভিউয়ের শিডিউল ছিল, এসময় সেটার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন প্রধানমন্ত্রী।
সেটা অবশ্য বিশ্বাস করেনি ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ অনুষ্ঠনের উপস্থাপক মরগান। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘কাপুরুষতা ভালো দেখায় না। নিজেকে গর্দভ প্রমাণ না করে কিছুক্ষণ কথা বললেই ঝামেলা মিটে যেতো।’খবরে বলা হয়, গতকাল সকালে লিডসে পায়চারি করছিলেন বরিস জনসন। আর তখনই আইটিভি’র গুড মর্নিং বৃটেন অনুষ্ঠানের সাংবাদিক তার মুখোমুখি হন। বরিস এর আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে তিনি অনুষ্ঠানের উপস্থাপক পিয়ার্স মরগ্যান ও সুসানা রেইডের মুখোমুখি হবেন।
সেই ব্যাপারেই ওই সাংবাদিক তাকে জিজ্ঞেস করেন। জবাবে বরিস বলেন, আমি এক সেকেন্ডের মধ্যেই তোমার সঙ্গে সংযুক্ত হবো। কিন্তু তিনি এই কথা বলেই অন্য দিকে যেতে শুরু করেন। যেতে যেতে রীতিমতো বড় একটি ফ্রিজের ভেতর ঢুকে পড়েন তিনি!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *